খাঁচা

একজন খাঁচার ভেতর সুখ খুঁজে পায়, আরেকজন খাঁচা ভেঙে উড়ে যেতে চায়। তবু দুজন দুজনকে ভালোবাসে, ভালোবেসে সংসার শুরু করে। কিন্তু একজন আরেকজনকে টেনে হিঁচড়ে খাঁচার ভেতর আনতে চায়, আরেকজন খাঁচা ভেঙে অপরজনকে টেনে বেড় করতে চায়। দুজন বিপরীতগামী মানুষ ভালোবাসার অদৃশ্য এক সুতোয় আটকা পড়ে, তবু তাদের মাঝে লড়াই প্রতিনিয়ত চলতে থাকে। সংসার ব্যাপারটা তখন কেমন বিভীষিকাময় হয়ে উঠে। পাতালের ভালোবাসাটুক অভিশাপ হয়ে ধরা দেয় …

মেয়েটি
তুমি সীমার মধ্যে আসতে চেয়েছ
তবু
সীমার মাঝে বাসতে চাওনি ভালো ??

ছেলেটি –
তুমি খোলা আকাশে
উড়তে চেয়েছ
তবু ঘর বানাতে দালান লাগে
দেয়াল তুলে গণ্ডি এঁকে
বেঁধে রাখতে হয় …

মেয়েটি –
তবু মন কি ছাড়া যায় না ??
চোখের সীমায়
মনের সীমায়
নেই কি ভেদাভেদ ?

ছেলেটি –
সব কিছু যায়
সব পারা যায়
সেরূপ বাসা
স্বর্গে ভালো

মেয়েটি –
তবে আমায় কেন
এপার তুমি
খুঁজতে এলে
বলো ?

ছেলেটি –
আমার সীমায় বাসব ভালো বলে …

মেয়েটি –
আমার সীমা মিলিয়ে গেলে পরে ??

*Art Credit : Shubharanjan Paul 
“My ideas come from my daily life, the lives of people around me. My works deal with the chaotic, overcrowded, generalized and overpopulated society we are battering in. The battle therefore lies for inner peace. 
Till date, I like living the simple life instead of blindly following the materialistic world. The world is a never-ending pool of wants.  I feel like it is my duty to make society realize the ill effects of being completely materialistic and plastic. Art is the way we respond to our environment. The dream of a simplistic life is the main oxygen of my artwork.” 

Follow his works at https://www.mojarto.com/search-all?search=shubharanjan
insta:     https://www.instagram.com/shubharanjan_paul

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *